1. dainikboguramail@gmail.com : dainikboguramail :
  2. babu24news@gmail.com : mita2023 :
বগুড়া সদরের নিশিন্দারা ইউনিয়নের নওদাপাড়ায় সোয়া কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়ে পালিয়েছে প্রতারক চক্র - দৈনিক বগুড়া মেইল : DainikBoguraMail
সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪, ১০:৫৮ অপরাহ্ন
সর্বশেষ >>>
পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে অনলাইন নিউজ পোর্টাল দৈনিক বগুড়া মেইলের পরিবারের পক্ষ থেকে ঈদের শুভেচ্ছা ও ঈদ মোবারক সান্তাহারে নেশার এ্যাম্পুলসহ এক মাদক ব্যবসায়ী  গ্রেপ্তার সান্তাহারে বিভিন্ন  ব্যাংকে নিরাপত্তা জোরদার করতে মধ্যরাতে ব্যাংক পরিদর্শনে —ওসি আদমদিঘী গরম ও ভীড়ের কারনে ৩ নারী অসুস্থ্য গাবতলীর ১১টি ইউনিয়নে ভিজিএফ’র চাল বিতরণ গাবতলীতে সভাপতির স্বাক্ষর জাল করে অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ গাবতলীতে এক প্রতিবন্ধী পরিবারের ৭টি গরু চুরি গাবতলীতে সংবাদ সম্মেলন করে উপজেলা চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রত্যাহার শাজাহানপুরে বিএনপি নেতাদের কবর জিয়ারত করলেন সাবেক এমপি লালু গাবতলীর মহিষাবান হাইস্কুলের শিক্ষক কর্মচারীরা ঈদ আনন্দ থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন ? বগুড়া লেখক চক্রের উপদেষ্টা কবি শিবলী মোকতাদির এর ৫৫তম জন্মদিন পালন

বগুড়া সদরের নিশিন্দারা ইউনিয়নের নওদাপাড়ায় সোয়া কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়ে পালিয়েছে প্রতারক চক্র

  • প্রকাশিত : শুক্রবার, ১১ আগস্ট, ২০২৩
স্টাফ রিপোর্টারঃ বগুড়ায় সঞ্চয় সমিতি খুলে ২০০ জনের সোয়া কোটি টাকাও বেশি হাতিয়ে নিয়ে পালিয়েছে প্রতারক চক্র। সদরের নওদাপাড়া ইয়ং স্টার ক্লাবের এন ওয়াই এসসি নামে সঞ্চয় সমিতি খুলে এই প্রতারণা করা হয়েছে।
বারপুর মধ্যপাড়া, দক্ষিণপাড়া, নিশিন্দারা ও মাটিডালিসহ বিভিন্ন এলাকার নারীসহ ২০০ মানুষ ওই সমিতিতে তাদের রোজগার থেকে প্রতিদিন ২০ টাকা, ৫০ টাকা ও একশ’ ও দুইশ’ টাকা করে সঞ্চয় করে আসছিলেন। সেইসাথে সমিতির সদস্যের বাইরেও অনেকে মোটা অংকের লাভের আশায় ২-৩ লাখ টাকা করেও বিনিয়োগ করেছিলেন ওই সমিতিতে। কিন্তু সোয়া কোটির  টাকারও বেশি  হাতিয়ে নিয়ে রাতের আঁধারে পালিয়েছে সমিতির কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা।

প্রতারিতদের মধ্যে সদরের চাঁদপুর সোনারপাড়ার রোজি বেগম বলেন, ইসলামী শরিয়ামতে সমিতির কার্যক্রম চলবে। সমিতিতে টাকা রাখলে মোটা অংকের লভ্যাংশ দেয়া হবে। এই প্রলোভন দিয়ে নওদাপাড়ার ইয়ং স্টার ক্লাবের কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা তার কাছ ৩ লাখ ৮ হাজার টাকা হাতিয়ে নিয়ে পালিয়ে গেছে।

বারপুর মধ্যপাড়ার সম্পা আক্তার অভিযোগে বলেন, তিনি ওই সমিতিতে টাকা  সঞ্চয় করে ১ লাখ ৭০ হাজার টাকা খুঁইয়েছেন। এ ভাবে একই এলাকার সুলতানা ১ লাখ ৭৫ হাজার, তাসলিমা ৫০ হাজার ও ইকতারা ৪০ হাজারসহ বিভিন্ন এলাকার কমপক্ষে ২০০ জন খেটে খাওয়া মানুষ, শ্রমজীবি নারী ও গৃহবধূ প্রায় সোয়া এক কোটি টাকারও বেশি খুঁইয়েছেন।

বারপুর মধ্যপাড়ার মুক্তি বেগম বলেন, সমিতি খুলে বিপুল পরিমাণ টাকা হাতিয়ে নিয়ে কয়েক দিন আগে পালিয়েছে ওই চক্রের সদস্যরা। যারা প্রতারণার শিকার হয়েছেন তাদের মধ্যে অধিকাংশই নারী। তিনি বলেন,টাকা উদ্ধারের জন্য তারা বিভিন্ন স্থানে ধর্ণা দিচ্ছেন। এমনকি মানববন্ধন পর্যন্ত করেছেন। কিন্তু তাদের টাকা উদ্ধার হচ্ছে না। টাকা উদ্ধারের জন্য নিশিন্দারা ইউনিয়ন পরিষদের ৭ নম্বর ওয়ার্ড (নওদাপাড়া) ইউপি সদস্য শহিদুল ইসলাম সরকার নান্টু দায়িত্ব নিয়েছেন। কিন্তু আজ পর্যন্ত তিনি টাকা উদ্ধার করে দিতে পারেননি।

এ ব্যাপারে ইউপি সদস্য শহিদুল ইসলাম নান্টু বলেন, ২০১৭ সাল থেকে ইয়ং স্টার ক্লাবের সঞ্চয় সমিতির কার্যক্রম চলে আসছিল। সমিতির সদস্যের সংখ্যা ২ শতাধিক। ক্লাবের সভাপতি মিঠুন চক্রবর্ত্তী,সাধারন সম্পাদক আল আমিন,আদায়কারী সবুজ মিয়া,কোষাধ্যক্ষ আব্দুস সালাম, সাংগঠনিক সম্পাদক মোহিদুল ইসলাম মহিত মিলে সমিতি চালিয়ে আসছিল। সমিতির সদস্যরা ছাড়াও বাইরের অনেকে মোটা অংকের লাভের জন্য ২-৩ লাখ টাকা করেও বিনিয়োগ করেন। এক পর্যায়ে তাদের পুজির পরিমাণ দাঁড়ায় এক কোটি ৩০ লাখ টাকা। কিন্তু এই বিপুল পরিমাণ টাকা নিয়ে এই ৫ জন উধাও হয়েছে। পরে তাদের সাথে যোগাযোগ করে গ্রাহকদের টাকা ফেরত দেয়ার উদ্যোগ নেন তিনি। তারা প্রথমে ১৫ জুন এরপর সর্বশেষ ১৫ জুলাইয়ের মধ্যে টাকা ফেরত দেয়ার অঙ্গিকার করলেও টাকা ফেরত দেয়নি। তারা মোবাইল ফোন বন্ধ রেখেছে।

এ ব্যাপারে নিশিন্দারা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারমান মো: শহিদুল ইসলাম বলেন, নওদাপাড়া ইয়ং স্টার ক্লাবের সঞ্চয় সমিতির নামে যে বিভিন্ন জনের কাছ থেকে প্রায় সোয়া কোটি টাকা হাতিয়ে নেয়া হয়েছে এটা সত্য। কিন্তু তার কাছে ভুক্তভোগীদের আসতে দিচ্ছেনা একটি চক্র। তিনি অভিযোগ পেলে তিনি ব্যবস্থা নিবেন।

এ বিষয়ে বগুড়া পৌরসভার ১৭ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো: ইকবাল হোসেন রাজু বলেন,  তার ওযার্ড নিশিন্দারা, মাটিডালি, ঝোপগাড়ী, ফুলবাড়ি,জয়পুরপাড়া, বারপুর এলাকার অনেকে ওই  ক্লাবের সঞ্চয় সমিতিতে টাকা জমা রেখে প্রতারিত হয়েছেন। তিনি অবিলম্বে ওই প্রতারকদের গ্রেফতার এবং টাকা উদ্ধার করে ভুক্তভোগীদের ফিরে দিতে প্রশাসনের প্রতি অনুরোধ জানিয়েছেন। এ ব্যাপারে সদর থানার ওসি মো: সাইহান ওলিউল্লাহ জানিয়েছেন,এ বিষয়ে কেউ থানায় অভিযোগ করেনি। অভিযোগ করলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ।।  দৈনিক বগুড়া মেইল
Theme Customized BY Themes Seller.Com